Breaking News

CWG 2022: শেষ রক্ষা হল না ভারতের , কমনওয়েলথ ক্রিকেটে সোনা অধরাই ভারতীয় মহিলা দলের

কমনওয়েলথ গেমসের ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরেছে ভারত। দারুণ লড়াই করেও শেষ রক্ষা হয়নি। ৯ রানে হেরেছে হরমনপ্রীত কৌরের দল। ক্যাপ্টেন হারমান নিজেই খেলেছেন দ্রুত ৬৫ রানের ইনিংস। জেমিমা রদ্রিগেজও করেন ৩৩ রান। কিন্তু অভিজ্ঞ ব্যাটারের অভাবে শেষ পর্যন্ত ভুগতে হয়। অস্ট্রেলিয়ার আট উইকেটে ১৬১ রানের জবাবে ভারত শেষ করেছে ১৫২ রান। সোনা জেতা হয়নি। এবার টাকা নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হলো।

এই ম্যাচটি দেখে ২০১৭ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালের কথা মনে পড়েছে অনেকের। সে সময় ভারত ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ভালো খেলে শেষ মুহূর্তে হারতে হয়। কমনওয়েলথ ক্রিকেটের ফাইনালেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। কমনওয়েলথে এই প্রথম মহিলা ক্রিকেট শুরু হল। নারী ক্রিকেটে সবচেয়ে সফল দল অস্ট্রেলিয়া প্রথমবারের মতো এটি জিতেছে। ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ, ২০ ওভারের বিশ্বকাপের পর এবার কমনওয়েলথেও সোনা জিতেছে অস্ট্রেলিয়া।

অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক মেগ ল্যানিং টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন। এই সিদ্ধান্ত প্রথমে কিছুটা ধাক্কা খেয়েছিল। তৃতীয় ওভারে রেণুকা সিংয়ের বলে ফিরে যান অ্যালিসা হিলি। তবে ল্যানিং এবং বেথ মুনি দ্বিতীয় উইকেটে দীর্ঘ জুটি গড়েন। দুজনেই ভারতীয় বোলারদের আক্রমণ করেন। গ্রুপ ম্যাচে রেণুকার হাতে আউট হন দুজনই। এদিন তারা ভারতীয় বোলারদের খুব ভালোভাবে সামলেছেন। দ্বিতীয় উইকেটে ৭৪ রান।

রাধা যাদবের থ্রোতে ল্যানিং রান আউট হওয়ার পর চাপে পড়ে অস্ট্রেলিয়া। চারে নেমে যাওয়া তালিয়া ম্যাকগ্রাও (৩০) খেলেননি। কিন্তু অন্যদিকে মুনি একাই খেলেছেন। হাফ সেঞ্চুরিও করেন তিনি। বিপরীত দিকে অংশীদার হিসাবে অ্যাশলে গার্ডনার পান. এই গার্ডনারই গ্রুপ ম্যাচে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে ভারতকে হারান। এই দিনে 25 রান
ফিরে আসা অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানদের কেউই পরের ওভারে দাঁড়াতে পারেননি।

হারের পরও ভারতের ফিল্ডারদের প্রশংসা করতে হয়। রাধা প্রথমে এগিয়ে যান এবং ম্যাকগ্রাকে দুর্দান্ত ক্যাচ দিয়ে ফেরত পাঠান। এরপর বাউন্ডারির ​​ধারে দুর্দান্ত এক হাতে ক্যাচ দিয়ে মুনিকে ফিরিয়ে আনেন দীপ্তি শর্মা। এ ছাড়া রানআউট আছে দুটি। ফিল্ডিং মিস পাওয়া যাচ্ছে না। হরমনপ্রীতের ফিল্ডিংয়ের জন্য লক্ষ্য ছিল খুবই কম।

রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি ভারতের। সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হাফ সেঞ্চুরি করা স্মৃতি মান্ধানা (6) দ্বিতীয় ওভারে ডার্সি ব্রাউনের বলে বোল্ড হন। শেফালি ভার্মাও (১১) খেলতে গিয়ে আউট হন। অধিনায়ক হরমনপ্রীত ও জেমিমা রদ্রিগেজ ভারতকে চাপে টানতে থাকে। সেই মুহূর্তে ক্রিজে থাকা দুই ব্যাটারকে ক্যাচ দিয়ে খেলতে হয়। হারমন ও জেমিমা সেটাই করেছেন। দুজনেই বল মারতে থাকেন। কিন্তু ঝুঁকি নেননি।

জেমিমার বেরিয়ে যাওয়াটাই ছিল বিপদের শুরু। মেগান শুটের বল সুইপ করতে যান জেমিমা। বল সোজা উইকেটে মারেন। ফাইনালে পূজা ভাস্ত্রকারের অবদান মাত্র ১। হরমনপ্রীতও অবাক। ক্রিজে জমে থাকা স্পিনার অ্যাশলে গার্ডনারকে সুইপ করতে যান। বল পড়ে যায় উইকেটরক্ষকের হাতে।

দীপ্তিই ছিল একমাত্র ভরসা। দুটি চার মেরে আশা জাগিয়েছেন তিনি। শুতে এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরার পর ভারতের আশা শেষ হয়ে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.