Breaking News
Sachin's old flash
Sachin's old flash

Sachin’s old flash: শচীনের পুরনো ফ্ল্যাশ, ভারতের কিংবদন্তি বড় জয়

Sachin’s old flash: জন্টি রোডসের নেতৃত্বে দক্ষিণ আফ্রিকার কিংবদন্তির বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন ভারতের কিংবদন্তি অধিনায়ক শচীন। নমন ওঝার সঙ্গে ওপেনিংয়ে নামেন তিনি। মাস্টার ব্লাস্টার শচীন টেন্ডুলকারের ইশগোজে ফেরা। অতীতের ঝলক থাকলেও শচীনের ব্যাট থেকে বড় রান আসেনি। 

উদ্বোধনী জুটিতে ৪৬ রান যোগ করেন তারা। শুরুতে পিচ মন্থর হওয়ায় শট খেলতে পারেননি শচীন। টাইমিং সমস্যার কারণে কয়েকটি ক্যাচও দেখা দেয়। প্রথম দুটি ক্যাচও মিস হয়েছে। তৃতীয়বার ভাগ্য ছিল না। মাখায়া এনটিনির বলে মিড অফে জোহান বোথারের হাতে ক্যাচ দেন শচীন টেন্ডুলকার। শচীনের ১৬ রানের ইনিংস ১৫ বলে দুটি বাউন্ডারি। যদিও তিনি অল্প রান নিয়ে ফিরে গেলেও, ভারতের কিংবদন্তি 20 ওভারে 4 উইকেটে 217 রানের বিশাল স্কোর করে।

Sachin's old flash

স্পিন বোলিংয়ের শক্তিতে বড় ব্যবধানে জিতেছে ভারত। দক্ষিণ আফ্রিকা 20 ওভারে 9 উইকেটে 156 রানে ইনিংস শেষ করে। ব্যাট হাতে সফল না হলেও নেতা হিসেবে শচীন ছিলেন নিখুঁত। দক্ষিণ আফ্রিকার এই কিংবদন্তি শুরুটা ভালোই করেন। এরপর স্পিনারদের আক্রমণে নিয়ে আসেন অধিনায়ক শচীন টেন্ডুলকার।

দক্ষিণ আফ্রিকা শিবিরে প্রথম ধাক্কা দিলেন লেগ স্পিনার রাহুল শর্মা। ভারতীয় বোলিং আক্রমণে তিনিই সবচেয়ে সফল। রাহুল ৪ ওভারে মাত্র ১৭ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন। বাঁহাতি স্পিনার প্রজ্ঞান ওঝা নেন ২ উইকেট। যুবরাজ সিং নেন ১ উইকেট। স্পিনারদের দখলে ৬ উইকেট।

বাকি ৩ উইকেটের মধ্যে মুনাফ প্যাটেল নেন ২টি এবং ইরফান পাঠান ১টি উইকেট নেন। দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসে সবচেয়ে বেশি রান করেছেন অধিনায়ক জন্টি রোডস। ২৭ বলে ৩৮ রান করে অপরাজিত থাকেন জন্টি।

Sachin's old flash

রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজের দ্বিতীয় সংস্করণ। এবারের প্রতিযোগিতা শুরু হল ভারত কিংবদন্তি বনাম দক্ষিণ আফ্রিকার কিংবদন্তির ম্যাচ দিয়ে। ভারতের বিশাল স্কোরে বড় ভূমিকা রেখেছিলেন স্টুয়ার্ট বিনি। শচীন আউট হওয়ার কয়েক বল পরেই ফেরেন আরেক ওপেনার নমন ওঝাও।

ফিল্ডিংয়ে কিংবদন্তি জন্টি রোডসের হাতে ধরা পড়েন তিনি। সুরেশ রায়না মাত্র ২২ বলে ৩৩ রানের ইনিংস খেলেন। মাত্র ৬ রান করে ফিরেন যুবরাজ সিং। ভারতীয় ইনিংসে বড় পার্থক্য গড়ে দেন স্টুয়ার্ট বিনি ও ইউসুফ পাঠান। মাত্র 42 বলে 82 রান করেন স্টুয়ার্ট বিনি। বিন্নি মারেন ৫টি বাউন্ডারি এবং হাফ ডজন ওভার বাউন্ডারি। এছাড়া ১৫ বলে ৩৫ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন ইউসুফ পাঠান। মাত্র ১টি বাউন্ডারি মেরেছেন তিনি। ওভার বাউন্ডারি ৪.

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *